নারী সত্তা!!!
ভিজিট করতে ক্লিক করুন!
ভিজিট করতে ক্লিক করুন!

পর্ব – ২(১ম -খন্ড)
মানব জাতির একটি অংশ নারী। আমি বলি যাদের প্রতি টান কাজ করে তারাই নারী। মা,কন্যা,বোন,কিংবা বউ যে রূপেই এই টান আসুক না কেন। এক অটুট বন্ধন,মায়া।নারীর প্রতি এমন টানেই চলছি আমরা সবাই। নারীর প্রতি মায়া, মমতা,স্নিগ্ধতায় দেশ হয়েছে মা,নারীর রূপে দেখা হয় এই বিশ্বব্রাক্ষ্মন্ডকে।শুধু পুরুষ কেন,নারীরাও আমরা নারীর টানে চলি।একটু মনে হয় হাস্যকর হলো। তবুও বলি -আমরা সবাই ঘরে ফেরার টান অনুভব করি কেউ মায়ের টানে,কেউ কন্যা বোন বা বউ এর টানে।এ যেন এক মধ্যাকর্ষণ শক্তি কিংবা চুম্বকের দুই মেরুর আকর্ষণ।এক অটুট টান।

সৃষ্টিকর্তা এক অপার মহিমায় সৃষ্টি করেছেন নারী জাতিকে।মায়া, মমতা,স্নেহ,ভালবাসার এক অপরূপ রূপ দিয়েছেন নারীর মাঝে।মুসলমানদের হাদিস শরীফের বর্ণনায় পাওয়া যায়” আল্লাহপাক যখন খুশি হন তখন তিনি বৃষ্টি বর্ষণ করেন।আরেকটু বেশি খুশি হলে তিনি ঘরে মেহমান পাঠান।তার চাইতেও বেশি খুশি হলে তিনি কন্যা সন্তান পাঠান।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন ” মেয়েদের মত নিষ্ঠার সাথে ভালোবাসতে গেলে সমস্ত ছেলেদের চৌদ্দজন্ম তপস্যা করতে হবে।”

নারী শুধু ইঙ্গিত,সে প্রকাশ নয়। নারীকে আমরা দেখি বেলাভূমে দাঁড়িয়ে -মহাসিন্ধু দেখার মত।তীরে দাঁড়িয়ে যতটুকু দেখা যায়,আমরা নারীকে দেখি ততটুকু। সমুদ্রের জলে আমরা যতটুকু নামতে পারি,নারীর মাঝেও ডুবি ততটুকু।সে সর্বদা রহস্যের পর রহস্য জাল দিয়ে নিজেকে গোপন করেছে। এই তার স্বভাব।–কাজী নজরুল ইসলাম।

নারী মন যেমন কোমল মমতায় ভালবাসতে পারে, তেমনি প্রয়োজনে শক্ত হাতে হাল বা অস্ত্র ধরতেও জানে। কথায় বলে যে রাঁধে,সে চুলও বাঁধে।রাঁধা আর চুল বাঁধা দুটো কাজই করে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন অনেক নারী।বেগম রোকেয়া,সুফিয়া কামাল,হেনাদাস,মেরি কুরি,হেলেন কেলার,জোন ব্যারে,সাবিহা গকসেন ও আরো হাজারও নারী ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়ে প্রমাণ করে গেছেন যে -নারীরাও পারে তাদের বুদ্ধি,জ্ঞান,অর্জিত শক্তি দিয়ে ইতিহাস রচনা করতে।

ইসলামে বলা হয়, মা -বেহেস্ত,কন্যা -রহমত, বোন -বরকত,স্ত্রী -নেয়ামত।
কত রূপ,কত মায়া,কত প্রেম -ভালবাসার এক অফুরান ভান্ডার দিয়ে তৈরি নারী।কোমল হৃদয়ের অধিকারী এই নারী খুব অল্পতেই যেমন মান অভিমান করে সহজেই কাঁদতে পারে, আবার তেমনি সবচেয়ে বড় কষ্ট পেলেও নীরবে চোখের পানি ফেলে আড়াল করতে পারে।

সবকিছু মিলিয়ে এক স্নিগ্ধ এক রূপ।এই রূপটাকে অর্জন করতে হয় স্বভাবে,আচরনে,পোষাকে,প্রেম -ভালোবাসায় সবদিক দিয়ে।এত রূপ থাকার পরও নারী লিঙ্গ নিয়ে জন্মালেই নারী হওয়া যায় না।নারী হতে ঐ কোমল রূপগুলোকে ধারণ করতে হয়।

বফ কাট চুল,জিন্স, টি শার্ট,মিনি স্কার্ট,টাইটফিট পোষাক,উগ্র সাজসজ্জায় হয়তো নিজেকে কিছুটা স্মার্ট ভাবা যায় কিন্তু নারী হওয়া যায় না।কে কি ভাবেন জানি না।তবে আমার ভাবনা এরকম। কারো হয়তো ভালো নাও লাগতে পারে।তবুও বলবো, নারী হতে হবে এমন যাকে দেখলে মানষপটে তৈরি হবে মায়া, শ্রদ্ধা,সন্মানের এক প্রতিচ্ছবি।যাকে দেখলে হৃদয়ে তৈরি হবে না কোন আকর্ষণ বা অন্যকোন কামনার আকাঙ্খা।আমার কাছে আকর্ষণ আর হৃদয়ের টান দুটো ভিন্ন ব্যাপার।————

———চলবে।

শাহনাজ বেগম

বিসিএস , শিক্ষক

সরকারি কলেজ

Please To Write An Article Sign-Up
error0
News Reporter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *